সিরিজে সমতা আনল জিম্বাবুয়ে

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জয়ের জন্য মাত্র ১১৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৯৯ রানে গুটিয়ে গেছে পাকিস্তান। মূলত লুক জঙ্গি ও রায়ান বার্লদের বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা। সর্বশেষ ২১ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে জিম্বাবুয়ের কাছে পরাজয় দেখতে হয় পাকিস্তানকে। এদিকে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানকে ১৯ রানে হারিয়ে সিরিজে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে।

জয়ের জন্য ১১৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি পাকিস্তান। দলীয় মাত্র ২১ রানেই সাজঘরে ফেরেন গেল ম্যাচে হাফ সেঞ্চুরি করা মোহাম্মদ রিজওয়ান। এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ফিরেছেন ১৮ বলে ১৩ রান করে। এদিন থিতু হতে পারেননি ফখর জামানও। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান ফিরেছেন মাত্র ২ রানে।

দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের মতো জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেও টানা দুই ম্যাচে ব্যর্থ মোহাম্মদ হাফিজ। ৪০ বছর বয়সি ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান ফিরেছেন ১০ বলে মাত্র ৫ রান করে। ৫৬ রানে ৩ উইকেট হারালেও এক প্রান্তে রানের চাকা সচল রেখেছিলেন অধিনায়ক বাবার আজম।

যদিও হাফ সেঞ্চুরি করতে না পারার আক্ষেপ নিয়ে সাজঘরে ফিরতে হয় বাবরকে। ৪৫ বলে ৪১ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরেন আইসিসির র‌্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে থাকা এই ব্যাটসম্যান। বাবরের বিদায়ের পর আর কোনো ব্যাটসম্যানই দাঁড়াতে পারেননি।

সর্বশেষ ২১ রানে ৬ উইকেট হারিয়েছে পাকিস্তান। ফলে প্রথম ম্যাচে জিতলেও দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ১৯ রানের হার দেখতে হয় বাবরের দলকে। জিম্বাবুয়ের হয়ে চারটি উইকেট নিয়েছেন জঙ্গি, দুটি বার্ল আর একটি করে উইকেট নিয়েছেন নাগারভা এবং মুজারাম্বানি।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে কামুনহুকাম্বের ৪০ বলে ৩৪, রেজিস চাকাভার ১৪ বলে ১৮ এবং ম্যাডভেরের ১৬ রানের সুবাদে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১১৮ রান তুলে জিম্বাবুয়ে। পাকিস্তানের হয়ে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন দানিশ আজিজ ও মোহাম্মদ হাসনাইন।

পাঠকের মন্তব্য