নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে শুনানি শুরু আদালতে  

ইহুদীবাদী রাষ্ট্র ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার শুনানি শুরু হয়েছে। সোমবার জেরুজালেমের একটি আদালতে উপস্থিত হন নেতানিয়াহু। সেখানে শুনানিতে প্রথম দফায় সাক্ষ্য গ্রহণ করা হবে।

৭১ বছর বয়সী নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণ, জালিয়াতি এবং বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগে তিনটি পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এর আগে ফেব্রুয়ারিতে জেরুসালেম ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে কঠোর নিরাপত্তায় তিন বিচারকের সমন্বয়ে গঠিত এক প্যানেলের কাছে শুনানিতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন নেতানিয়াহু।

করোনাভাইরাসের কারণে দেশজুড়ে কড়াকড়ি ও বিধি-নিষেধ এবং গত মাসের সাধারণ নির্বাচনের কারণে তার শুনানির তারিখ কয়েক দফা পিছিয়ে গেছে।

গত দু'বছর ধরে ইসরায়েলের রাজনীতিতে অস্থিরতা বিরাজ করছে। দু'বছরের মধ্যে দেশটিতে চারবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বার বার নির্বাচনের পরেও রাজনৈতিক অস্থিরতায় কোনো পরিবর্তন আসছে না।

মামলার শুনানি চলাকালীন সময়ে নেতানিয়াহুকে আদালতে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এদিকে, সোমবার সরকারের গঠনের জন্য দলের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন প্রেসিডেন্ট রিউভেন রিভলিন। পরবর্তী জোট সরকারের নেতৃত্ব কে দেবেন সে বিষয়ে আলোচনা হবে।

ইসরায়েলি আইন অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী যদি কোনো অপরাধে দোষী সাব্যস্ত না হন তবে তার পদ থেকে সরে দাঁড়ানো বাধ্যতামূলক নয়। অন্য কোনো মন্ত্রীর ক্ষেত্রে অবশ্য এই সুবিধা নেই। অভিযোগ প্রমাণ না হলে পরবর্তী সরকারের প্রধান হিসেবেও নেতানিয়াহুই দায়িত্ব গ্রহণ করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নেতানিয়াহুর দাবি, তিনি কোনো অপরাধ করেননি। তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। তার দাবি, তিনি ঘুষ গ্রহণ করেননি বরং বন্ধুর কাছ থেকে উপহার গ্রহণ করেছেন। আর ইসরায়েলি আইনে বন্ধুর কাছ থেকে উপহার নেয়া দোষের কিছু না।

দেশটিতে ঘুষ গ্রহণে অভিযুক্ত হলে ১০ বছরের জেল বা জরিমানা দিতে হয়। অপরদিকে, জালিয়াতি এবং বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিন বছরের কারাদণ্ড ভোগ করতে হয়।  

এশিয়িামেইল২৪/এমএএম
 

পাঠকের মন্তব্য