মুশফিকদের দেখে বাকিরা আসুক চায় না বিসিবি

মুশফিকুর রহিম, মেহেদি হাসান মিরাজ, নাঈম হাসানদের দেখে বাকি ক্রিকেটাররাও অনুশীলনে ফিরুক এমনটা চাচ্ছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। প্রথম সারির বাংলা দৈনিক মানবজমিনের সঙ্গে আলাপকালে এমনটাই নিশ্চিত করেছেন বোর্ডের প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী। মূলত বর্তমান পরিস্থিতিতে ক্রিকেটারদের নিয়ে ঝুঁকি নিতে রাজি নয় দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা। 

দীর্ঘ দিন ধরে খেলা বন্ধ থাকায় অনেকটাই হাঁপিয়ে উঠেছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। এমতাবস্থায় সারা দেশে ৯ জন ক্রিকেটারকে মাঠে অনুশীলনের অনুমতি দিয়েছে বিসিবি। 

এই নয় ক্রিকেটারদের মধ্যে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিক ছাড়াও রয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন, ইমরুল কায়েস, শফিউল ইসলাম, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, নাসুম আহমেদ, মেহেদি হাসান, নুরুল হাসান সোহান এবং নাঈম হাসান। দেশের বিভিন্ন জেলায় ব্যক্তিগতভাবে অনুশীলনে অংশ নেবেন এই ক্রিকেটাররা।  

করোনাভাইরাস সংক্রমণের শঙ্কা থাকায় প্রাথমিকভাবে সীমিত সংখ্যক ক্রিকেটারদের অনুশীলনের ব্যবস্থা করছে ক্রিকেট বোর্ড। পরিস্থিতি বিবেচনায় বাকি খেলোয়াড়েরা যেন এখনই মাঠে না আসেন সেটাই চাওয়া দেবাশীষের।

তিনি বলেন, আমরা এখনো মনে করি না মাঠে ক্রিকেট ফেরার মতো পরিস্থিতি আছে। এখানে যে ৯ জনের জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে তারা হয়তো আর ঘরে বসে থাকতে চাচ্ছে না। হ্যাঁ, এটাই  স্বাভাবিক এতদিন ঘরে থাকাও কঠিন ক্রিকেটারদের জন্য। তাদের প্রয়োজনের কারণেই আমরা মাঠ প্রস্তুত করেছি। রেখেছি সব ব্যবস্থা। এছাড়াও ৯ ক্রিকেটারকে দেখে অন্যরা সবাই মাঠে চলে আসুক এটাও আমরা চাই না।

অনুশীলনের জন্য বোর্ডের পক্ষ থেকে বেশ কয়েকটি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে ক্রিকেটারদের। যার মধ্যে একটি হলো বাড়ি থেকেই উপযুক্ত পোশাক পরে আসা।

একই সঙ্গে যাতায়াতের ব্যাপারেও সুনির্দিষ্ট নীতিমালা বেঁধে দেয়া হয়েছে তাঁদের জন্য। দেবাশীষ জানিয়েছেন মুশফিকদের সার্বক্ষণিক দেখভালের জন্য মেডিক্যাল বিভাগের কর্মকর্তারাও উপস্থিত থাকবেন অনুশীলনের সময়।

বিসিবির এই অভিজ্ঞ চিকিৎসক বলেন, আমরা বেশ কয়েকটি নির্দেশনা দিয়েছি। যেমন বাড়ি থেকেই অনুশীলনের পোশাক পরে আসা। এতে করে ড্রেস পরিবর্তন করার যে ঝামেলাটা তা মাঠে করতে হবে না। 

এখানে তাদের গাড়ির ড্রাইভার কীভাবে আনবেন, কিংবা তারা কীভাবে যাতায়াত করবেন সেগুলোর একটি লিখিত কপি দেয়া হয়েছে ক্রিকেটারদের। এছাড়াও মাঠে আমাদের মেডিক্যাল বিভাগের কর্মকর্তারাও উপস্থিত থাকবেন। তারাও ক্রিকেটারদের দেখাশোনা করবেন, প্রয়োজনে যে কোনো ধরনের সাহায্য করবেন।'

পাঠকের মন্তব্য