‘দিলদার ভাইয়ের জন্যই আজ আমি নাসরিন’

ঢাকাই সিনেমার বেশ সুপরিচিত একটি নাম নাসরিন। পাঁচ শতাধিক সিনেমায় অভিনয় করা নাসরিনের চলচ্চিত্রে আগমন ঘটে ১৯৯২ সালে নির্মাতা সোহানুর রহমান সোহানের হাত ধরে। ছোট ছোট চরিত্র থেকে শুরু করে সব চরিত্রেই কাজ করেছেন তিনি। সেই ১২ বছর বয়স থেকেই অভিনয়ের সঙ্গে জড়িত নাসরিন। এত বছর ধরে অভিনয় করলেও নিজের কোন অবস্থান তৈরি করতে পারেননি। আর এর কারণ হিসেবে অন্যান্য নায়িকাদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেন নাসরিন।

নাসরিনকে বাংলা চলচ্চিত্রের দর্শকরা মূলত নৃত্যশিল্পী হিসেবে বেশি চিনেন। তবে দিলদারের সাথে জুটি গড়ে নাসরিন দীর্ঘদিন অভিনয় করেছেন। তখন থেকেই সবাই দিলদারের নায়িকা হিসেবে চিনতে শুরু করে। তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে অভিনয় করছেন তিনি। নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন নিয়ে চলচ্চিত্রে এলেও পার্শ্ব চরিত্রেই তিনি জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। মনের মধ্যে থেকে গেছে নায়িকা না হতে পারার আক্ষেপ।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে নাসরিন বলেন, আমার ক্যারিয়ারের শুরু দিকে আমাকে এটিএম ভাই ইলিয়াস কাঞ্চন ভাইয়ের একটি ছবিতে নায়িকা হিসেবে অভিনয়ের জন্য বলে। আমিও সেই প্রস্তাবে রাজি হয়ে প্রায়ই ইলিয়াস ভাইয়ের বাসায় যেতাম। সেখানে এটিএম ভাই আমাকে প্রশিক্ষণ দিতো। বেশ কিছু দিন যাওয়ার পর দেখলাম আমাকে কাঞ্চন ভাই ডাকছে না ছবিতে কাজ করার জন্য। 

তিনি আরও বলেন, একদিন আমি শুটিং করছিলাম দিলদার ভাইসহ। সে সময় এটিএম ভাই আমার সামনেই দিলদার ভাইকে বললো দিলদার কাজটা কী ভালো করলা? মেয়েটার জীবন তুমি শেষ করে দিলা। তুমি না বলে ছিলে ওর মাথায় সমস্যা আছে, শুটিং ফাসিয়ে দিবে। তোমার জন্যই তো কাঞ্চন ওর সিনেমায় ওকে নিলো না। আর তাই দিলদার ভাইয়ের জন্যই আজ আমি নাসরিন। 

এদিকে কৌতুক অভিনেতা দিলদারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে নাসরিন বলেন, আসলে আমি দিলদার ভাইয়ের কাছে কৃতজ্ঞ। তার জন্যই হয়তো আজকে আমাকে সবাই এক নামে চিনে। নায়িকা হলে হয়তো দুই চারটা সিনেমা করে কাউকে বিয়ে করে চলচ্চিত্র থেকে বিদায় নিতাম।

পাঠকের মন্তব্য